রাজশাহী সারাদেশে

ক্যালেন্ডারে খন্দকার মোশতাকের ছবি ব্যবহারে এডওয়ার্ড কলেজের অধ্যক্ষ’র অপসারণ ও বিচার দাবিতে প্রতিবাদ সভা

মুক্ত চেতনা ডেস্ক : জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু’র হত্যাকারী খন্দকার মোশতাকের ছবি দিয়ে কলেজের ক্যালেন্ডার ও ডায়েরী প্রকাশ করায় দেশের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপিঠ সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ পাবনার অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মো. হুমায়ূন কবীর মজুমদারের অপসারণ ও বিচার দাবিতে প্রতিবাদ সভা করেছে মুক্তিযোদ্ধা সংগঠন। বৃহস্পতিবার (০৮’ এপ্রিল) বেলা ১১টায় সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ চত্বরে সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ ও একাত্তরের মুক্তিযোদ্ধা সংসদ পাবনা জেলা শাখার ব্যানারে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ও পাবনা জেলা শাখার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. স. ম. আব্দুর রহিম পাকন নেতৃত্বে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পদাক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল হক টিংকু, একাত্তরের মুক্তিযোদ্ধা সংসদ পাবনা সদর উপজেল শাখার আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী জববার, বাংলাদেশ আওমী সাংস্কৃতিক ফেরামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সম্পাদক মো. আবুল কাশেম, সেক্টর কমান্ডারস্ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’৭১ জেলা শাখা’র নির্বাহী সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম রফিক প্রমুখ।

প্রতিবাদ সভায় বক্তাগণ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু’র হত্যাকারী খন্দকার মোশতাকের ছবি দিয়ে কলেজের ক্যালেন্ডার ও ডায়েরী প্রকাশ করে বিভিন্ন জায়গায় উপহার হিসাবে পাঠিয়েছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ। মোশতাকের বাড়ি কুমিল্লায় এবং অধ্যক্ষের বাড়িও কুমিল্লায়। এজন্য কোন বিশেষ গোষ্ঠীর স্বার্থরক্ষার জন্য জাতিকে বিভ্রান্ত করার ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র চলছে। অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে কলেজের বিভিন্ন অনিয়ম দূর্ণীতির ঘটনা রয়েছে। যার মামলা এখনও দূর্ণীতি দমন কমিশন এ চলমান। বঙ্গবন্ধু’র হত্যাকারী খন্দকার মোশতাকের ছবি দিয়ে ক্যালেন্ডার ও ডায়েরী প্রকাশ করায় কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মো. হুমায়ূন কবীর মজুমদারসহ জড়িতদের ৭ দিনের মধ্যে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি ও বিচারের দাবি জানানো হয়। অন্যথায় আগামীতে বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে বলেও জানান মুক্তিযোদ্ধাগণ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ পাবনা সদর উপজেলা শাখার সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম সাচ্চু, জেলার অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধগণ ও বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন পাবনা জেলা শাখার ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মো. হুমায়ূন কবীর মজুমদার জ্বরে আক্রান্ত থাকায় মুঠোফোনে বলেন, আমি স্বাধীনতার স্বপক্ষের চেতনায় বিশ্বাস করি। বঙ্গবন্ধু’র নীতি আদর্শে প্রতিটি চলার পথে অনুসরণ করি। আমি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান। ছবিটি বঙ্গবন্ধু’র আরকাইভ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। এটি ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের ছবি। দেশের অনেক গুরুত্বপূর্ণ জায়গা এবং কার্যক্রমে এ ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। এই ছবি পরিবর্তন করার এখ্তিয়ার আমার নেই। যদি কারো কোন বিষয়ে আপত্তি থাকে তবে কলেজ চত্বরে করোনার মধ্যে বিশৃংখলা সৃষ্টি না করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন বলেও জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *