রাজশাহী সারাদেশে

পাবনার সাঁথিয়ায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে নিহত-১ আহত ১০; আটক ৪

নিজস্ব প্রতিনিধি : পাবনার সাঁথিয়ায় পূর্ববিরোধ ও আধিপত্য বিস্তারের জেরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে একজন নিহত ও আরো অন্তত দশজন আহত হয়। গুরুতর আহত পাঁচজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) দুপুরের দিকে উপজেলার ধোপাদহ ইউনিয়নের দয়রামপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত নাজির উদ্দিন (৩৫) দয়রামপুর গ্রামের ইলবাজ প্রামানিকের ছেলে। এই ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয় বলে জানা গেছে।

স্থানীয়রা জানান, ধোপাদহ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভপতি দয়রামপুর গ্রামের বাসিন্দা এনামুল কবির শশি ও তাজমুল হোসেন মেম্বার পক্ষের মধ্যে জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় ও আঞ্চলিক আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। সম্প্রতি শশি গ্রুপের জসিম উদ্দিন নামের একজনকে মারপিট করে তাজমুল মেম্বার গ্রুপের লোকজন। তিনি হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। বৃহস্পতিবার হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরার পর এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা হয়। এ সময় নাজিরসহ অন্যরা ছাত্রলীগ নেতা শশির বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেয়। এই বিষয়টি জানতে প্রতিপক্ষ জানতে পেরে তাজমুল মেম্বার ও তার লোকজন ওই বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর শুরু করলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এতে নাজির ও তাজমুল মেম্বারসহ অন্তত দশজন আহত হয়। তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক নাজির উদ্দিনকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় আহতদের মধ্যে সুমন হোসেন, নাছির উদ্দিন, ইলবাজ প্রামানিক, রাজা হোসেন, জোলেকা খাতুন, তাজমুল মেম্বারকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসিফ মোহাম্মদ সিদ্দিকুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। সংঘর্ষ ও হত্যায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরিবার থেকে মামলা দায়েরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তবে আটকের বিষটি এখনি সঠিক ভাবে বলা যাচ্ছে না তবে অভিযান চলছে।
ঘটনার বিষয়ে পাবনা জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, পূর্বশত্রুতার জের ও আঞ্চলিক আধিপত্যবিস্তারকে কেন্দ্র করে সাঁথিয়ার দয়রামপুর গ্রামের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘ্যের ঘটনা হয়েছে। একপক্ষের নেতৃত্র দিচ্ছেন অত্র এলাকা ছাত্রলীগের সভাপতি শশি ও অন্য পক্ষের নেতৃত্র দিচ্ছেন তাজমুল মেম্বার। তাদের দুইপক্ষের সংঘর্ষের সময় একজন নিহত হয়েছে বলে শুনেছি। আরো ৪ থেকে ৫জন আহত হয়েছি তাদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ঘটনা শোনার সাথে সাথে পুলিশ সুপারের নির্দেশে ওই এলাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্তিতি স্বাভাবিক করার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত সন্ধেহ ভাজন তিন চারজনকে ইতমদেধ্য আটক করা হয়েছে বলে শুনেছি। ঘটনা স্থল পরিদর্শনের জন্য সেখানে যাচ্ছি আমি। আর মৃত ব্যক্তির মরাদেহ ময়না তদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ইতমধ্যে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সঠিক তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে অইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *