রাজশাহী সারাদেশে

বগুড়ায় বেলা’র উপকারভোগী সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত

মুক্ত চেতনা ডেস্ক : বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা)’র উদ্যোগে বুধবার (২৪’ফেব্রুয়ারি) বগুড়া শহরের ম্যাক্স মোটেলে “করতোয়া এবং বাঙ্গালী নদী বিষয়ক মামলায় আদালতের আদেশ বাস্তবায়ন ও বর্তমান প্রেক্ষিত” শীর্ষক এক ‘উপকারভোগী সমন্বয় সভা’ অনুষ্ঠিত হয়। ইনডিপেনডেন্ট টিভি’র উত্তরাঞ্চল প্রধান হাসিবুর রহমান বিলু’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন বেলা’র রাজশাহী কার্যালয়ের সমন্বয়কারী তন্ময় কুমার সান্যাল। সভা সঞ্চালনা করেন বেলা’র প্রোগ্রাম ও ফিল্ড কো-অর্ডিনেটর এ এম এম মামুন। এ সময় বক্তব্য দেন বাপা’র বগুড়া জেলা শাখার সম্পাদক মো. জিয়াউর রহমান, বগুড়ার পল্লী উন্নয়ন প্রকল্পের প্রধান সমন্বয়কারী শেখ মো. আবু হাসনাত, দৈনিক আমাদের কণ্ঠের বিশেষ প্রতিনিধি ফজলে রাব্বি ডলার, উষা’র নির্বাহী পরিচালক এম ফজলুল হক বাবলু, ধুনটের সংগঠক মো. আরিফুল ইসলাম প্রমূখ। সভায় করতোয়া এবং বাঙালী নদী এলাকার ত্রিশ জন উপকারভোগী অংশগ্রহণ করেন। সভায় অংশগ্রহণকারীরা দলীয় কার্যক্রমের মাধ্যমে করতোয়া এবং বাঙালী নদীর বর্তমান চিত্র উপস্থাপন করেন।

বেলা’র কার্যক্রম সম্পর্কে রাজশাহী কার্যালয়ের সমন্বয়কারী তন্ময় কুমার সান্যাল বলেন, ন্যায্য, ন্যায়সঙ্গত এবং লিঙ্গ সমতার ভিত্তিতে কমিউনিটির ক্ষমতায়ন এবং প্রাকৃতিক সম্পদ ও পরিবেশগত অধিকার সুরক্ষায় বেলা কাজ করছে। এছাড়াও পরিবেশগত অধিকারের সচেতনতা গড়ে তোলার পাশাপাশি সচেতনতামূলক প্রচার, স্টেকহোল্ডারদের প্রশিক্ষণ প্রদান, পলিসি এডভোকেসি করার মাধ্যমে পরিবেশগত শাসন ব্যবস্থায় ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে বেলা কাজ করে চলেছে। এবং পরিবেশগত ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার লক্ষে বেলা আইনগত সহায়তা প্রদান করে থাকে। এছাড়াও স্বচ্ছ ও অংশগ্রহণমূলক পরিবেশ প্রশাসনের দাবিকে বেলা উৎসাহিত করে।

তিনি বলেন, প্রবাহ নিশ্চিত করা, সীমানা নির্ধারণ করা এবং দখল, দূষণ ও অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের হাত থেকে করতোয়া, বাঙালীসহ এ অঞ্চলের নদী, জলাশয় রক্ষা করা এখন সময়ের দাবি। তাই করতোয়া ও বাঙালী নদী বিষয়ক মামলায় মহামান্য আদালতের আদেশ বাস্তবায়নে স্থানীয় প্রশাসনের আরও বেশি ভূমিকা রাখা প্রয়োজন।

সভায় অংশগ্রহণকারীরা বলেন, গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে করতোয়া নদীর উপর নির্মিত ¯øুইসগেট অপসারণ, করতোয়ার সীমানা নির্ধারণ এবং সব ধরণের দখল ও দূষণ থেকে করতোয়া নদীকে রক্ষা করতে হলে বেলা’র দায়ের করা মামলায় দেওয়া মহামান্য আদালতের আদেশ বাস্তবায়নের কোনো বিকল্প নাই।

সভার সঞ্চালক এ এম এম মামুন বলেন, নদী হলো প্রাকৃতিক সম্পদ। এ সম্পদের প্রাণ রক্ষায় তার স্বাভাবিক প্রবাহ নিশ্চিত করতে হবে। একই সাথে নদী দখল, দূষণ, প্রবাহ বিঘ্নকারী অবকাঠামো অপসারণ এবং নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে প্রয়োজনীয় সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *